• পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
  • মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২২, ১১ মাঘ ১৪২৮
  • ||
  • আর্কাইভ

এই বহর থেকেই ১৭ জনের দল নিউজিল্যান্ড যাবে ৯ ডিসেম্বর

প্রকাশ:  ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ১৬:১০
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

ঘরের মাঠে সিরিজ হলে যে কোন সময় যাকে-তাকে ডেকে দলে নেয়া যায়; কিন্তু করোনার কারণে বদলে গেছে সে দীর্ঘ দিনের প্রচলিত নিয়ম। জৈব সুরক্ষা বলয়ে থাকার বাধ্যবাধকতা আছে। বাইরের কেউ হুট করে দলে ঢুকে টিম হোটেলে জৈব সুরক্ষা বলয়ে প্রবেশ করতে পারবেন না। খেলার তো প্রশ্নই আসে না। সে জন্য কয়েকজন খেলোয়াড় বেশি রাখা হচ্ছে দলে।

এর আগে গত ৮-৯ মাসে দেশের মাটিতে যতগুলো সিরিজ খেলেছে বাংলাদেশ, তার সবকটায় গড়পড়তা জনা দুয়েক ক্রিকেটার বেশি ছিলেন বহরের সঙ্গে; কিন্তু ২০-২১ জন ক্রিকেটার এর আগে টিম হোটেলে এক সঙ্গে জৈব সুরক্ষা বলয়ে কেন?

এ প্রশ্ন অনেকের মনেই উঁকি-ঝুঁকি দিচ্ছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে এ প্রশ্নের জবাব। আসল খবর হলো, পাকিস্তানের দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে মুমিনুল হকের দল উড়াল দেবে নিউজিল্যান্ডের উদ্দেশ্যে। সব কিছু ঠিক থাকলে আগামী ৮ ডিসেম্বর দিবাগত রাত ১টায়, মানে ঘড়ির কাঁটায় ৯ ডিসেম্বর প্রথম প্রহরে নিউজিল্যান্ড যাত্রা শুরু হবে টাইগারদের।

প্রসঙ্গতঃ আগামী ৪ ডিসেম্বর শেরে বাংলায় শুরু হবে দ্বিতীয় ও শেষ টেস্ট। ওই টেস্ট ৫ দিনে গড়ালে শেষ দিন রাত ১২ টার এক ঘণ্টা পরই বিমানে চেপে বসতে হবে টাইগারদের এবং জানা গেছে সামনের যে এক সপ্তাহ আছে, সেখানে আবার নতুন করে দল সাজানো হবে। এখন টিম হোটেলে জৈব সুরক্ষা বলয়ে যারা আছেন, তাদের মধ্য থেকে ১৬ থেকে ১৭ জনের দল তৈরি করে নিউজিল্যান্ড রওয়ানা হবে।

আগামী ১ জানুয়ারি মাউন্ট মঙ্গানুইয়ে বাংলাদেশ আর নিউজিল্যান্ডের প্রথম টেস্ট। তারপর ৯ থেকে ১৪ জানুয়ারি দ্বিতীয় টেস্ট ক্রাইস্টচার্চে। খুব স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন জাগছে, তাহলে প্রায় তিন সপ্তাহ আগে যাওয়া কেন?

বিসিবি মিডিয়া ম্যানেজার রাবিদ ইমাম দিয়েছেন এ কৌতুহলি প্রশ্নের উত্তর। রাবিদ আজ বুধবার বিকেলে জাগো নিউজকে জানিয়েছেন, ‘ফিকশ্চার যখন করা হয়েছে তখন নিউজিল্যান্ডে ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইন ছিল। যে কারণে প্রায় তিন সপ্তাহ পর টেস্ট শুরুর দিন তারিখ ধার্য্য করা হয়েছে।’

রাবিদ জানান, এখন সেটা কমিয়ে ৭ থেকে ১০ দিনের মত করা হয়েছে; কিন্তু যেহেতু নিউজিল্যান্ডের করোনা প্রটোকল খুব কড়া। সেখানে শুধু সফরে গিয়ে টিম হোটেলে একটা নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত কোয়ারেন্টাইনে থাকাই শেষ কথা নয়। আরও কড়াকাড়ি ও নিয়ম কানুন আছে। সে করোনা প্রটোকল মেনেই নিউজিল্যান্ডের সফরসূচি সাজাতে হয়। এখন ১০ ডিসেম্বর গিয়ে নিউজিল্যান্ড পৌঁছানোর পর অন্তত ৭ দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে।

এরপর প্র্যাকটিস করার সুযোগ মিলবে। একটি দুই দিনের প্রস্তুতি ম্যাচও খেলবে জাতীয় দল। তাই এত আগে যাওয়া।

এদিকে ভেতরে খবর হলো, যেহেতু বর্তমানে ২০ জনের একটি বহর জৈব সুরক্ষা বলয়ে আছে, তাই সেই দলটিই নিউজিল্যান্ড যাত্রা করবে। টিম ম্যানেজমেন্ট ও নির্বাচকদের খুব কাছের সূত্র নিশ্চিত করেছে যে, এখন যে ২০-২১ জনের বহর আছে সেখান থেকে ১৭ জনের একটি দল নিউজিল্যান্ড যাবে। সামনের এক সপ্তাহে আর নতুন কারো অন্তর্ভুক্তির সম্ভাবনা শূন্যের কোঠায়।