• পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
  • বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১
  • ||
  • আর্কাইভ

চাঁদপুর পৌর ৭নং ওয়ার্ড বিএনপির দ্বি-বার্ষিক সম্মেলন

প্রকাশ:  ০৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ০৯:৫৪
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

চাঁদপুর জেলা বিএনপির সভাপতি শেখ ফরিদ আহমেদ মানিক বলেছেন, ২০১৪ এবং  ২০১৮ সালের মতো সরকার আরেকটি নির্বাচন করতে চায়। সেই সুযোগ দেশের জনগণ দিবে না। শেখ হাসিনার পতনের জন্যে আমাদেরকে ঐক্য বজায় রাখতে হবে। নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে ছাড়া কোনো ভোট হতে দেয়া যাবে না। ভোট হতে হলে আমাদের দাবি মানতে হবে। ৮ সেপ্টেম্বর শুক্রবার বিকেলে চাঁদপুর আক্কাছ আলী রেলওয়ে একাডেমী মাঠে চাঁদপুর পৌর ৭নং ওয়ার্ড বিএনপির দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
দলীয় নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে শেখ ফরিদ আহমেদ মানিক বলেন, পৌর ৭নং ওয়ার্ড বিএনপির ঘাঁটি। আগামী দিনেও আমরা ঐক্য চাই। কারণ আগামীর আন্দোলন-সংগ্রাম সফল করতে হলে ঐক্যের বিকল্প নেই। নিজেদের মধ্যে দলাদলি ভুলে যান। আমাদের আগে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে। দেশনায়ক তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনতে হবে। আপনাদের ঈমানী দায়িত্ব--ভোট কাটতে দিবেন না, তা রক্ষা করতে হবে। বাকি ওয়ার্ডে সেখানকার ভোট তারা রক্ষা করবে। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে ছাড়া ভোট হতে দেয়া যাবে না।
তিনি বলেন, কত বড় সাহস রাতে বালু কাটে আর আমাদের কর্মীর গায়ে হাত দেয়। গতকাল লক্ষ্মীপুরে আমাদের কর্মীর গায়ে হাত দেয়া হয়েছে। আমাদের কোনো কর্মীর গায়ে হাত দিলে আমরা কিন্তু হাত গুটিয়ে বসে থাকবো না। প্রশাসনকে বলেছি, আশা করছি তারা দেখবে। আমাদের ধৈর্যের বাঁধ ভাঙ্গবেন না। তিনি দলীয় নেতা-কর্মীদের ধৈর্য নিয়ে দৃঢ়ভাবে থাকার আহ্বান জানান।
বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডঃ সলিম উল্যাহ সেলিম। সম্মেলন উদ্বোধক হিসেবে বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর পৌর বিএনপির সভাপতি আক্তার হোসেন মাঝি। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডঃ হারুনুর রশিদ, সাংগঠনিক সম্পাদক শরীফ উদ্দিন আহমেদ পলাশ, জেলা বিএনপির দপ্তর সম্পাদক হযরত আলী ঢালী ও জেলা তাঁতীদলের সভাপতি আলী আহমদ সরকার।
৭নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি হাজী সামসুল হক প্রধানীয়ার সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক কবির হোসেন সরকারের সঞ্চালনায় আরো বক্তব্য রাখেন জেলা যুবদলের সভাপতি মানিকুর রহমান মানিক, সাংগঠনিক সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ বাহার ও জেলা ছাত্রদলের সভাপতি ইমাম হোসেন গাজী। স্থানীয় নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ৭নং ওয়ার্ড বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক বিল্লাল হোসেন, জেলা যুবদলের সহঃ শিল্প বিষয়ক সম্পাদক সম্রাট বেপারী, পৌর যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক জিয়া প্রধানিয়া, জেলা যুবদল নেতা আলমগীর হোসেন, পৌর ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক ফয়েজ ঢালী, নূর মোহাম্মদ প্রমুখ।
জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডঃ নূরুল আমিন খান আকাশ, জেলা বিএনপির বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক সালাহউদ্দিন সেলিম, জেলা বিএনপির সহ-যুব বিষয়ক সম্পাদক দিন মোহাম্মদ জিল্লু, সম্মেলন সমন্বয়কারী ও জেলা বিএনপির সহ-প্রচার সম্পাদক কবির হোসেন মিয়াজী, জেলা বিএনপির সহ-স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক মনিরুল ইসলামসহ বিএনপি, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল, মহিলা দল, শ্রমিক দল ও তাঁতী দলের শত শত নেতা-কর্মী সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।
সম্মেলনে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে ৫ থেকে ৭ জন পদপ্রার্থী ছিলেন। তাদের সমর্থনে বিকেল সাড়ে ৩টার পর ৭নং ওয়ার্ডের বিভিন্ন মহল্লা থেকে বহু দলীয় নেতা-কর্মী ব্যানার-ফেস্টুন-বাদ্যযন্ত্র নিয়ে মিছিল করে সম্মেলন স্থানে জড়ো হয়। বিএনপি ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীদের স্বতঃস্ফূর্ত উপস্থিতিতে সম্মেলনটি জনসভায় রূপ নেয়। সম্মেলনের প্রথম পর্ব শেষে কমিটি ঘোষণা করা হয়নি।
দ্বিতীয় অধিবেশনে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক প্রার্থীদের এবং মহল্লা কমিটির নেতৃবৃন্দকে নিয়ে পৌর নেতারা বসে এই ওয়ার্ডের নতুন নেতৃত্ব নির্বাচিত করবেন বলে জানানো হয়।