• পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
  • রোববার, ২৯ মে ২০২২, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯
  • ||
  • আর্কাইভ

হাজীগঞ্জ এখন ৪ হাজারের অধিক নারী উদ্যোক্তার ই-প্লাটফর্ম

প্রকাশ:  ২০ এপ্রিল ২০২২, ১০:৫৪
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

 ২৪ ঘণ্টা সংবাদভিক্তিক টিভি চ্যানেল ৭১ টেলিভিশনের একটি থিম হচ্ছে ‘পৃথিবীর মানুষ বাস করে দুই দুনিয়ায়, একটি অ্যাকচুয়াল আরেকটি ভার্চুয়াল’। সেই ভার্চুয়াল দুনিয়ায় এখন মানুষের রামরাজত্ব। সেই রামরাজত্বের একটি অংশ অনলাইন ব্যবসা বা ই-প্লাটফর্ম। আর যদি সেই অনলাইন ব্যবসা হয় নারী উদ্যোক্তার মাধ্যমে তাহলে সফলতা আসবে বলা চলে শতভাগ। অনলাইনে প্রায় ৪ হাজার নারী উদ্যোক্তার এমনই এক প্লাটফর্ম এখন হাজীগঞ্জ। এখান থেকে নারীরা তাদের ব্যবসাকে দিন দিন প্রসারিত করছেন। যা পরিচালিত করছে ‘হাজীগঞ্জ নারী উদ্যোক্তা গ্রুপ’।
জানা যায়, নারীরা নিজেদের সংসার সামলিয়ে অনলাইন ব্যবসাতে মনোযোগী হচ্ছেন। ইতিমধ্যে বেশ ক’জন সফলতার মুখ দেখেছেন। এমনই এক দম্পতি হচ্ছেন জাকির হোসেন আনন্দ ও তার স্ত্রী ঝুমানা নূর বিথী। নানা প্রতিবন্ধকতা পেরিয়ে এবং প্রতিকূলতাকে জয় করে বর্তমানে এ দম্পতির সহযোগিতায় ‘হাজীগঞ্জ নারী উদ্যোক্তা গ্রুপ’-এর মাধ্যমে দেশের প্রায় ৪ হাজার নারী আত্মকর্মসংস্থানের সুযোগ পেয়েছে। জাকির হোসেন আনন্দ তার সিমন রেক্সিন হাউজ, সানিম ব্যাগ হাউজ, আয়াত ও ওমেন্স জোন নামক চারটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে ‘হাজীগঞ্জ নারী উদ্যোক্তা গ্রুপ’কে সফলভাবে পরিচিত করে তুলতে সক্ষম হয়েছেন।
তাদের অনলাইনভিত্তিক উদ্যোগের ফলে সব ধরনের দেশি ও বিদেশি বস্ত্র, গয়না, সাংসারিক পণ্য, শিশুখাদ্য, পিঠা, জন্মদিনের কেক, প্রসাধনী বিক্রির মাধ্যমে গ্রাহকের আস্থা ও বিশ^াস অর্জন করেছে। এতে করে মানুষ ঘরে বসেই তাদের নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য ক্রয় করতে পারছেন। অপরদিকে অর্থনৈতিকভাবে সাবলম্বী হচ্ছেন নারী উদ্যোক্তারা।
হাজীগঞ্জের নারী উদ্যোক্তা নিশু আনোয়ার ও শিউলী আক্তার, চাঁদপুরের লাবণ্য সুমী, নোয়াখালীর খাদিজা ও রাজধানীর (ঢাকা) শারমিনের সাথে কথা হলে তারা জানান, তারা সবাই দেশের আর্থসামাজিক প্রেক্ষপটে দাঁড়িয়ে নারী হিসেবে শুধু চাকরি নয়, উদ্যোক্তা হিসেবেও আজ নিজেকে প্রতিষ্ঠা করেছেন। এজন্যে তারা ‘হাজীগঞ্জ নারী উদ্যোক্তা গ্রুপ’সহ যতো ধরনের ই-প্লাটফর্ম রয়েছে সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।
হাজীগঞ্জ নারী উদ্যোক্তা গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা জাকির হোসেন আনন্দ জানান, আমি ও আমার স্ত্রীর প্রচেষ্টায় ই-প্লাটফর্মে বহু নারী নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে পেরেছেন। এতেই আমরা খুশি। আমাদের মূল উদ্দেশ্য হলো, পিছিয়ে পড়া নারীদেরকে আয়ের পথ তৈরি করে দেয়া। আমাদের এ প্লাটফর্মের মাধ্যমে উদ্যোক্তারা তাদের পণ্য বিক্রি করছেন। আবার অধিকাংশ উদ্যোক্তা বিনা মূলধনে ব্যবসা করছেন। এতে করে তারা অর্থনৈতিকভাবে সাবলম্বী হচ্ছেন। আমরা শুধু নারী উদ্যোক্তাদের পণ্য ক্রয়-বিক্রয়ে সহযোগিতা করছি না, পাশাপাশি তাদেরকে প্রয়োজনীয় তথ্য, দিকনির্দেশনা, আর্থিক ও মানসিক সহায়তা এবং পণ্য, বাজার ও আর্থিক ব্যবস্থাপনা নিয়ে প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকি।

সর্বাধিক পঠিত