• পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
  • শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১
  • ||
  • আর্কাইভ

শারদীয় দুর্গোৎসব-২০২২ উপলক্ষে জেলা পুলিশের মতবিনিময় সভা

বঙ্গবন্ধুর ও শেখ হাসিনার বাংলাদেশে কোনো দুষ্কতকারীর ঠাঁই হবে না ......পুলিশ সুপার মোঃ মিলন মাহমুদ, বিপিএম (বার)

প্রকাশ:  ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৯:৩০
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

 শারদীয় দুর্গোৎসব-২০২২ উপলক্ষে পূজা উদ্যাপন পরিষদ নেতৃবৃন্দের সাথে চাঁদপুর জেলা পুলিশের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ২১ সেপ্টেম্বর বুধবার বিকেলে পুলিশ লাইনসে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত সকল বিট এলাকার পূজা উদ্যাপন কমিটির নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। 
সভায় পুলিশ সুপার মোঃ মিলন মাহমুদ বিপিএম (বার) বলেন, নিজ নিজ ধর্ম সুষ্ঠুভাবে পালনে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় জেলা পুলিশ সবসময় সতর্ক রয়েছে। জেলার আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে জেলার সব সার্কেল ও থানার অফিসার ইনচার্জদের পেশাদারিত্বের সাথে দায়িত্ব পালনসহ যে কোনো পরিস্থিতি মোকাবিলায় সতর্ক থাকতে হবে। পুলিশের পক্ষ থেকে প্রতিটি পূজাম-প এলাকায় সর্বোচ্চ আইন-শৃঙ্খলা ও নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করার পাশাপাশি নিজস্ব স্বেচ্ছাসেবক দিয়ে নিরাপত্তা ব্যবস্থাপনা রাখার আহ্বান জানান পুলিশ সুপার। সে সাথে যানজট নিয়ন্ত্রণে শহরে বিভিন্ন পয়েন্টে চেকপোস্ট ও একমুখী যানচলাচল নিশ্চিত করা হবে বলে অভিপ্রায় ব্যক্ত করেন তিনি।
অনুষ্ঠানে সভাপ্রধানের বক্তব্যে পুলিশ সুপার বলেন, সরকারি আদেশ মোতাবেক পূজার পূর্বপ্রস্তুতি, পূজার সময়, পূজার শেষে আমাদের সকলের ওপর অর্পিত দায়িত্বসমূহ অত্যন্ত দায়িত্ব সহকারে পালন করতে হবে। প্রত্যেকটি পূজাম-পে সিসি ক্যামেরার ব্যবস্থা থাকতে হবে, এটার বিকল্প কিছু চিন্তা করা যায় না। পূজাম-পে বিদ্যুতের বিকল্প হিসেবে অবশ্যই জেনারেটর রাখবেন।
তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর ও শেখ হাসিনার বাংলাদেশে কোনো দুষ্কতকারীর ঠাঁই হবে না। আশা করি, সবাই মিলে একটি সুন্দর পূজা উদ্যাপন করতে পারবেন। প্রতিটা মন্দিরে কমপক্ষে ৩টি সিসি ক্যামেরা লাগাবেন। আমরা আমাদের সর্বোচ্চ দিয়ে চেষ্টা করবো কোনো খারাপ ঘটনা যাতে না ঘটে। প্রয়োজনে অন্যান্য বাহিনীকে আনা হবে।
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আসিফ মহিউদ্দিনের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অর্থ) সুদীপ্ত রায়, এনএসআই ডিডি শাহ আরমান আহমেদ, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি গিয়াসউদ্দিন মিলন, জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি সুভাষ চন্দ্র রায়, সাধারণ সম্পাদক তমাল কুমার ঘোষ, পুরাণবাজার ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ রতন কুমার মজুমদার, জেলা হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি অ্যাডঃ বিনয় ভূষণ মজুমদার, সাধারণ সম্পাদক ও পিপি অ্যাডঃ রঞ্জিত রায় চৌধুরী এবং রামকৃষ্ণ আশ্রমের  মহারাজ রুদ্ররঞ্জিতন।
সভায় আরো বক্তব্য রাখেন নৌপুলিশের এএসপি তোফাজ্জল হোসেন, ডিএনসির সহকারী পরিচালক ইমদাদুল ইসলাম, ফায়ার সার্ভিসের ডেপুটি ডিরেক্টর সাহিদুল ইসলাম, উপজেলা আনসার ভিডিপির কর্মকর্তা সাকিব-উল মাওলা,  সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ আব্দুর রশীদ, হাইমচর থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আশরাফ উদ্দিন, মতলব দক্ষিণ থানার অফিসার ইনচার্জ মহিউদ্দিন মিয়া, মতলব উত্তর থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মহিউদ্দিন, ফরিদগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ শহীদ হোসেন, হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ জুবায়ের, শাহরাস্তি থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল মান্নান, কচুয়া থানার অফিসার ইনচার্জ ইব্রাহিম খলিল প্রমুখ।
উন্মুক্ত আলোচনায় বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক লক্ষ্মণ চন্দ্র সূত্রধর, হাইমচর পূজা উদ্যাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অজয় কৃষ্ণ মজুমদার, মতলব দক্ষিণ উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি কিশোর কুমার ঘোষ, মতলব উত্তর উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শ্যামল চন্দ্র দাস, ফরিদগঞ্জ উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সহ-সভাপতি পরেশ চন্দ্র দাস, হাজীগঞ্জ উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি রুহিদাস বণিক, শাহরাস্তি উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের  সভাপতি নিখিল চন্দ্র মজুমদার, কচুয়া উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক বিকাশ চন্দ্র সাহা, হাইমচর উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অজয় কৃষ্ণ মজুমদার প্রমুখ।
সভায় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (হাজীগঞ্জ সার্কেল) মোঃ সোহেল মাহমুদ (পিপিএম), অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম এন্ড অপস্), সহকারী পুলিশ সুপার (মতলব সার্কেল) মোঃ ইয়াসির আরাফাত, সহকারী পুলিশ সুপার (কচুয়া সার্কেল) মোঃ আবুল কালাম চৌধুরী, বীর মুক্তিযোদ্ধা অজিত সাহা, চাঁদপুর জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক গোপাল সাহা, জেলা জন্মাষ্টমী উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি পরেশ মালাকারসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।
এ বছর চাঁদপুর জেলায় মোট ২শ’ ১৫টি ম-পে দুর্গাপূজা হবে।

 

সর্বাধিক পঠিত