• পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
  • শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০
  • ||
  • আর্কাইভ

বিএনপি-জামায়াতের বর্তমান কার্যক্রমের প্রতিবাদে পৌর আওয়ামী লীগের শান্তি সমাবেশ

সারাদেশে যা কিছু উন্নয়ন হয়েছে তা শেখ হাসিনার সময়ে হয়েছে : শিক্ষামন্ত্রী

প্রকাশ:  ১৫ মার্চ ২০২৩, ১৩:২৫
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

আন্দোলনের নামে সন্ত্রাস, নৈরাজ্য, অগ্নিসংযোগ, সাম্প্রদায়িক উস্কানি ও বিএনপি-জামায়াতের বর্তমান কার্যক্রমের  প্রতিবাদে চাঁদপুর পৌর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে শান্তি সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল ১৪ মার্চ মঙ্গলবার বিকেলে শহরের  ওয়্যারলেছ মোড়ে সমাবেশে টেলিকনফারেন্সে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি এমপি।
এ সময় তিনি তাঁর বক্তব্যে বলেন, পাকিস্তানি পেতাত্মারা শেখ হাসিনাকে বেশ ক’বার হত্যার চেষ্টা করেছে। তারা আগুন সন্ত্রাস করে মানুষকে পুড়িয়ে হত্যা করেছে। স্বাধীনতার পর থেকে এ পর্যন্ত চাঁদপুরে যে উন্নয়ন হয়েছে তা আর কোনো সরকারের আমলে হয়নি। বিএনপি চাঁদপুরে এমন কোনো উন্নয়ন দেখাতে পারবে না তাদের আমলে করা হয়েছে। অথচ ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের পর দীর্ঘদিন এই বিএনপি সরকার  ক্ষমতায় ছিল। তাদের দেখানোর মতো আছে শুধু নৃশংসতা। দেখানোর মতো আছে শুধু গুলি করে মানুষ হত্যা করা। চাঁদপুরের মানুষ তাদেরকে ভাল করে চিনে। আমি চাঁদপুরের নেতা কর্মীদের অনুরোধ জানাবো আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ঘরে ঘরে যাবেন। বিএনপির জামাতের নৈরাজ্যের চিত্র তুলে ধরবেন। তার পাশাপাশি শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের যে উন্নয়ন চাঁদপুরে যে উন্নয়ন মানুষের ভাগ্যের উন্নয়ন হয়েছে সেই চিত্র তুলে ধরবেন। এ চিত্র তুলে ধরে চাঁদপুরের প্রতিটি আসন নৌকার বিজয় নিশ্চিত করে শেখ হাসিনাকে উপহার দিবেন। আপনারা নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে কাজ করবেন। আমাদের সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।
তিনি আরো বলেন, সারাদেশে  যা কিছু উন্নয়ন হয়েছে তা হয়েছে শেখ হাসিনার সময়ে। শেখ হাসিনা যা উন্নয়ন করেছে তা অন্য কোনো সরকার করেনি। আজকে চাঁদপুরে যোগাযোগ ব্যবস্থার ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। চাঁদপুরের চরাঞ্চলের প্রতিটি ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ। মানুষের জীবনমানের ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। চাঁদপুরের নদী ভাঙ্গা মানুষের জন্যে আশ্রয়ন প্রকল্প করা হয়েছে। আমাদের শহরে যে জনজীবনে নাগরিক  সেবা প্রাপ্তি সহজতর হয়েছে। বিএনপির নৈরাজ্যের চাঁদপুরের প্রমাণ হাফানিয়া গ্রাম। সেই গ্রামে তারা যে নির্যাতন চালিয়েছিলো তা গ্রামবাসী আজো ভুলেনি। তারা ২০১৪-১৫ সালে চাঁদপুরে সমস্ত গাছ কেটে ফেলেছিলো। ট্রাক পুড়িয়ে চালকসহ হেলপার এমনকি মানুষ হত্যা করেছিল। এ ধরনের কর্মকাণ্ড করে তারা কি করে জনগণের কাছে যেতে চায়। আমরা বিএনপি-জামায়াতের অপশক্তির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবো।
চাঁদপুর পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি রাধাগোবিন্দ গোপের সভাপতিত্বে শান্তি সমাবেশ এবং চাঁদপুর পৌরসভার ১৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোঃ আলমগীর গাজী, চাঁদপুর সদর উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক অ্যাডঃ হুমায়ুন কবির সুমন ও সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক প্রচার সম্পাদক আব্দুস হামাদ টুনুর যৌথ পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি আলহাজ মোঃ ইউসুফ গাজী, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক অজয় কুমার ভৌমিক, যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক মাসুদ আলম মিল্টন, সহ-দপ্তর সম্পাদক রনজিত রায় চৌধুরী, চাঁদপুর সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ নূরুল ইসলাম নাজিম দেওয়ান, ফরিদগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডঃ জাহিদুল ইসলাম রোমান, চাঁদপুর সদর উপজেলার আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আলী এরশ্বাদ মিয়াজী, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়িকা মাসুদা নূর খান, চাঁদপুর পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম বাবুল, চাঁদপুর সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আইয়ুব আলী বেপারী, চাঁদপুর জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক মাহফুজুল রহমান টুটুল, মোহাম্মদ আলী মাঝি, জেলা যুব মহিলা লীগের সভাপতি ফরিদা ইলিয়াছ, চাঁদপুর পৌর যুবলীগের আহ্বায়ক শেখ আব্দুল মালেক, সদর উপজেলা যুবলীগের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক শিমুল হাসান শামনু, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন খান, বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম বরকন্দাজ, সদর উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহিদা বেগম, পৌর মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শিপ্রা দাস, ১৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মারুফ মজুমদার, সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইমরান হক গাজী, ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি কাশেম গাজী প্রমুখ।
এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক তাফাজ্জল হোসেন এসডু পাটওয়ারী, চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র অ্যাডঃ জিল্লুর রহমান জুয়েল, জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মুক্তিযোদ্ধা এসএম সালাহউদ্দিন, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি অ্যাডঃ হেলাল হোসাইন, চাঁদপুর সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আবিদা সুলতানা, তরপুরচণ্ডী ইউপি চেয়ারম্যান ইমাম হাসান রাসেল গাজী, রাজরাজেশ্বর ইউপি চেয়ারম্যান হাজী হযরত আলী বেপারী, পৌরসভার কাউন্সিলর হাবিবুল রহমান দর্জি, কবির চৌধুরী, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শেখ মোহাম্মদ মোতালেব, সাধারণ সম্পাদক ওবায়েদুর রহমান তৃপ্তি, বর্তমান সভাপতি জহির উদ্দিন মিজি, পৌর ছাত্রলীগের জহিরুল ইসলাম রবিন পাটওয়ারীসহ আরো অনেক।

 

সর্বাধিক পঠিত