• পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
  • বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১
  • ||
  • আর্কাইভ

বঙ্গবন্ধু অনূর্ধ্ব-১৭ গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট

ফরিদগঞ্জে খেলোয়াড় ও সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ

প্রকাশ:  ১২ জুন ২০২৩, ০৮:৫৩
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

ফরিদগঞ্জে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু অনূর্ধ্ব-১৭ গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের প্রথম কোয়ার্টার ফাইনালের খেলার শেষ পর্যায়ে খেলোয়াড় ও সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ সময় ভেন্যুর সমর্থকরাও সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষের এই ঘটনায় খেলোয়াড়সহ অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে। ১১ জুন রোববার বিকেলে উপজেলার পাইকপাড়া উত্তর ইউনিয়নের পাইকপাড়া ইউজি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এই ঘটনা ঘটে। এদিকে আজ সোমবার ১২ জুন অনুষ্ঠিতব্য ফরিদগঞ্জ পৌরসভা একাদশ বনাম ৮নং পাইকপাড়া একাদশের মধ্যকার খেলাটিতে নিরাপত্তাহীনতার কারণে অংশ না নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পৌর কর্তৃপক্ষ। বিষয়টি পৌর একাদশের টিম ম্যানেজার ও কাউন্সিলর জাকির হোসেন গাজী ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি ও  (ইউএনও)কে লিখিতভাবে নিশ্চিত করেছেন।
তথ্যানুসন্ধানে জানা যায়, রোববার বিকেলে উপজেলার পাইকপাড়া উত্তর ইউনিয়নের পাইকপাড়া ইউজি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু অনূর্ধ্ব-১৭ গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের ১ম কোয়ার্টার ফাইনালে ১৫নং রূপসা উত্তর ইউনিয়ন বনাম ১১নং চরদুঃখিয়া ইউনিয়ন মুখোমুখি হয়। উত্তেজনাপূর্ণ খেলার শেষ পর্যায়ে দুই দলের সমর্থক ও খেলোয়াড়দের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়। দফায় দফায় এই সংঘর্ষে ৭নং পাইকপাড়া উত্তর ইউনিয়নের কিছু লোকজন জড়িয়ে পড়ে। প্রায় আধাঘণ্টা জুড়ে এই সংঘর্ষে খেলোয়াড়সহ অন্তত ৭ জন আহত হয়। এরা হলেন চরদুঃখিয়া পূর্ব ইউনিয়নের খেলোয়াড় তারেক বেপারী, ফরিদ, ইয়াছিন ও জহির এবং তালেব বেপারীসহ দুইজন সমর্থক। এছাড়া রূপসা উত্তর ইউনিয়ন ও স্থানীয় পাইকপাড়া উত্তর ইউনিয়নেরও কয়েকজন সমর্থক আহত হয়।
এদিকে পৌরসভা একাদশের টিম ম্যানেজার ও কাউন্সিলর জাকির হোসেন গাজী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি বরাবর লিখিত আবেদন করে নিরাপত্তহীনতার কারণে সোমবার অনুষ্ঠিতব্য ফরিদগঞ্জ পৌরসভা একাদশ বনাম ৮নং পাইকপাড়া একাদশ খেলাটিতে অংশগ্রহণ করবে না বল জানান।
 রূপসা উত্তর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এসএম কাউছারুল আলম কামরুল জানান, খেলা নিয়ে ঝামেলা হয়েছে শুনে দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়েছি। পরে আমি আমার দলের খেলোয়াড়দের নিয়ে চলে এসেছি।
 
এ ব্যাপারে উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক নুরুন্নবী নোমান জানান, রোববার বিকেলে রূপসা উত্তর ও চরদুঃখিয়া পূর্ব ইউনিয়ন একাদশের মধ্যকার উত্তেজনাপূর্ণ খেলা শেষ হওয়ার সাথে সাথে বহিরাগতরা মাঠে প্রবেশ করে বিশৃঙ্খলা শুরু করে। এতে খেলোয়াড় ও সমর্থকরা আহত হয়। পরে আমরা আয়োজক কমিটি, পুলিশ এবং স্থানীয় গণ্যমান্যরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসি।
এদিকে ফরিদগঞ্জ পৌরসভার মেয়র যুদ্ধাহত বীরমুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়ের পাটওয়ারী মুঠোফোনে জানান, মাঠের পরিবেশ খেলার উপযোগী নয়। তাই নিরাপত্তাহীনতার কারণে আমরা পরবর্তী খেলায় অংশগ্রহণ করবো না।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তাসলিমুন নেছা বলেন, আমি চাঁদপুরে একটি সভায় ছিলাম। সেখান থেকে ফরিদগঞ্জে এসে খেলার মাঠের অপ্রীতিকর ঘটনা শুনেছি। তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। পরবর্তী ব্যবস্থাগ্রহণ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।
 উল্লেখ্য, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু অনূর্ধ্ব-১৭ গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের ভেন্যু হিসেবে চলমান টুর্নামেন্টের জন্য রূপসা উত্তর ইউনিয়নের রূপসা আহাম্মদিয়া উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ ও পাইকপাড়া ইউজি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ নির্ধারণ করা হয়। পরে বৃষ্টির কারণে রূপসা উত্তরের ভেন্যু স্থগিত করা হয়। ইতিপূর্বে সকল ধরনের টুর্নামেন্টের সকল খেলা উপজেলা সদরের এ আর পাইলট মডেল সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত হয়েছিল।