• পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
  • বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১
  • ||
  • আর্কাইভ

মতলবে চিকিৎসকের গাফলতিতে রোগীর মৃত্যুর অভিযোগ

প্রকাশ:  ০৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ০৯:৫৮
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

মতলব দক্ষিণ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ রাজীব কিশোর বণিকের গাফলতিতে শিশু মিথিলা (৯)-এর মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এছাড়া তিনি অফিস সময়ে প্রাইভেটে রোগী দেখার ফলে এ ঘটনাটি ঘটেছে। গত ৫ সেপ্টেম্বর অ্যাপোলো ডায়াগনস্টিক এন্ড কনসালটেশন সেন্টারে সকাল ১১টায় রোগী দেখার পরে রাত সাড়ে ১০টায় মতলব সরকারি হাসপাতালে ওই শিশুর মৃত্যু হয়েছে। মিথিলা মতলব উত্তর উপজেলার ইসলামাবাদ গ্রামের কামাল শিকদারের মেয়ে।
পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, জ্বর নিয়ে সকাল ১০টায় অ্যাপেলো ডায়াগনস্টিক এন্ড কনসালটেশন সেন্টারে মিথিলার স্বজনরা তাকে নিয়ে আসে। সাড়ে ১০টায় অফিস সময় ছেড়ে ডাঃ রাজীব কিশোর বণিক আসেন প্রাইভেট চেম্বারে। ওই সময় রোগীকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা দিয়ে প্রেসক্রিপশন করে ঔষধ দিয়ে যান তিনি এবং ৭দিন পর দেখা করতে বলেন। রাতে রোগীর অবস্থা বেগতিক দেখে তাকে মতলব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন রোগীর স্বজনরা। পরে কর্মরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। রোগীর শরীরে প্রচণ্ড জ্বর থাকার পরও রোগীকে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার কথা বলেন নি ডাঃ রাজীব কিশোর বণিক। ভর্তি হলে হয়তো রোগীর এ অবস্থা হতো না।
জনৈক এলাকাবাসী জানায়, ডাঃ রাজীব কিশোর বণিক অ্যাপোলো ডায়াগনস্টিক এন্ড কনসালটেশন সেন্টারের সাথে শেয়ার হোল্ডার হিসেবে রয়েছেন। অফিস সময়ে তিনি এখানে চেম্বার করেন। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দূর-দূরান্ত থেকে রোগী এসে তাকে অফিসে পায় না। এতে সাধারণ রোগীদের ভোগান্তি হচ্ছে।
ডাঃ রাজীব কিশোর বণিক জানান, রোগী আসলে তাকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা দেয়া হয়েছে। সবকিছু দেখে তাকে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। রোগীর অবস্থা বেগতিক দেখে রোগীর স্বজনরা রাতে আমাকে ফোন দিয়েছেন। আমি তাদেরকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসার পরামর্শ দিয়েছি।
উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মুহিবুল্লাহ জানান, এ বিষয়ে জেনেছি। তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে। দোষী হলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।