• পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
  • রোববার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১
  • ||
  • আর্কাইভ

বঙ্গবন্ধু সকল ধর্মের মানুষদের একসূত্রে গেঁথেছিলেন : মেয়র জিল্লুর রহমান জুয়েল

প্রকাশ:  ০৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ১০:০০
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

 চাঁদপুর শহরের পুরাণবাজার দাসপাড়া সার্বজনীন শিব মন্দির জন্মাষ্টমী উদ্যাপন পরিষদ আয়োজিত পরমেশ্বর ভগবান শ্রীকৃষ্ণের শুভ জন্মাষ্টমী উৎসবের উদ্বোধন হয়েছে। ৬ সেপ্টেম্বর বুধবার বিকেল ৪টায় মন্দির প্রাঙ্গণে মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্জ্বলন, শোভাযাত্রা ও ধর্মীয় আলোচনা সভার মধ্য দিয়ে পরমেশ্বর ভগবান শ্রীকৃষ্ণের শুভ জন্মাষ্টমী উদ্যাপন করা হয়। এ উপলক্ষে জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদ আয়োজিত বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রায় অংশ নেয় তারা। প্রধান অতিথি হিসেবে শোভাযাত্রার উদ্বোধন করেন চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র জিল্লুর রহমান জুয়েল।
এ সময় মেয়র বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এ দেশের সকল সম্প্রদায়ের, সকল ধর্মের মানুষদের একসূত্রে গেঁথেছিলেন। সে ধারাবাহিকতায় তাঁরই সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে পরিচালিত বাংলাদেশ আজ অসাম্প্রদায়িকতার প্রকৃষ্ট উদাহরণ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।
তিনি বলেন, ধর্মীয় সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বাংলাদেশের দৃষ্টান্ত বিরল। এখানে মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসবগুলোতে যেমন সকল ধর্মের মানুষ স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করেন, ঠিক তেমনই অন্য ধর্মাবলম্বীদের ধর্মীয় উৎসবগুলোতে মুসলমান সম্প্রদায়ের সকল মানুষ একইভাবে অংশগ্রহণ করেন।
সব ধর্মের মূল বাণী মানুষের কল্যাণ ও শান্তির সমাজ বিনির্মাণ উল্লেখ করে মেয়র বলেন, অশুভ শক্তির তৎপরতা থেমে নেই। অশুভ শক্তিকে পরাভূত করে সনাতন ধর্মাবলম্বীরা নিজেদের স্বকীয়তায় এগিয়ে যাবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও আপনাদের প্রিয় শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি এবং আমরা আপনাদের পাশে আছি।
মেয়র সনাতন ধর্মের প্রত্যেককে শুভ জন্মাষ্টমীর শুভেচ্ছা জানান এবং আগামী নির্বাচনে ডাঃ দীপু মনি এমপি ও নৌকার পক্ষে থাকার আহ্বান জানান।
এর আগে মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্জ্বলন করেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুদীপ্ত রায়। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক তমাল কুমার ঘোষ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন চাঁদপুর জেলা পুলিশের ডিআই-১ মনিরুল ইসলাম, চাঁদপুর জেলা হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক পিপি অ্যাডঃ রণজিত রায় চৌধুরী, জেলা জন্মাষ্টমী উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি পরেশ চন্দ্র মালাকার, পুরাণবাজার পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ রাজিব শর্মা, জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক গোপাল চন্দ্র সাহা, ব্যবসায়ী গণেশ চন্দ্র দে, দাসপাড়া শিব মন্দির কমিটির সভাপতি উত্তম দে, সাধারণ সম্পাদক রাজিব দে, দাসপাড়া শিব মন্দির দুর্গাপূজা কমিটির সভাপতি সত্য রঞ্জন দাস নান্টু, সাধারণ সম্পাদক বেবীন্টন দাস কিরণ প্রমুখ। দাসপাড়া শিব মন্দির জন্মাষ্টমী কমিটির সমন্বয়কারী লিটন সাহা, সভাপতি শাওন দাস, সেক্রেটারি সুব্রত দাস, সাংগঠনিক সম্পাদক কাত্তিক দাস, সহ-সভাপতি তুষার দাস, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সজল দাসসহ অনেকে।