• পরীক্ষামূলক সম্প্রচার
  • বুধবার, ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ২৫ মাঘ ১৪২৯
  • ||
  • আর্কাইভ

বাস চাপায় মোটরসাইকেল আরোহী ছাত্র-শিক্ষক নিহত

প্রকাশ:  ১১ জানুয়ারি ২০২৩, ১০:০২
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রিন্ট

 চাঁদপুর-কুমিল্লা আঞ্চলিক মহাসড়কের রসুলপুর এলাকায় বেপরোয়া বোগদাদ বাসের চাপায় পিষ্ট হয়ে মোটরসাইকেল আরোহী মাদ্রাসার শিক্ষক জাহিদ হোসেন ও ছাত্র জাবের হোসেন নিহত হয়েছেন। ১০ জানুয়ারি মঙ্গলবার দুপুর দেড়টার এ ঘটনা ঘটে।
প্রতক্ষদর্শীরা জানান, কুমিল্লাগামী বোগদাদ পরিবহনের একটি বাস রসুলপুর এলাকার ঘোষের বাড়ির মোড়ে দ্রুত গতিতে ছুটে এসে বিপরীত দিক থেকে আসা মোটরসাইকেলটিকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই বরুড়া উপজেলার লক্ষ্মীপুর আবাবীল ইসলামী একাডেমী মাদ্রাসার শিক্ষক জাহিদ হোসেন ও ছাত্র জাবের হোসেন নিহত হন। শাহরাস্তি উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকা রসুলপুর ঘোষের বাড়ির ভয়ানক মোড়টিতে বোগদাদ বাস চালক দ্রুত গতিতে ছুটে এসে রং সাইডে গিয়ে মোটরসাইকেল আরোহীদের চাপা দেয়। সংবাদ পেয়ে কচুয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে মৃতদেহগুলো উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। পুলিশ বাসটিকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।
নিহত শিক্ষক জাহিদ হোসেনের বাড়ি শাহরাস্তি উপজেলার দক্ষিণ নোয়াগাঁও গ্রামে। তিনি জাহাজী বাড়ির আঃ রাজ্জাকের ছেলে। ছাত্র জাবের হোসেনের বাড়ি লাকসাম উপজেলার মুদাফ্ফরগঞ্জ এলাকায়। মাদ্রাসা থেকে নূরানী শিক্ষক জাহিদ হোসেন গ্রামের বাড়িতে আসার পথে দুর্ঘটনা কবলিত হন। দুর্ঘটনার পর বাস চালক ও হেলপার পালিয়ে যায়।
স্থানীয়রা জানান, বাসটি মোটরসাইকেলটিকে প্রায় ২০ গজ টেনে হিঁচড়ে নিয়ে যায়। দুর্ঘটনার সাথে সাথে ক্ষত-বিক্ষত মৃতদেহ দুটি রাস্তায় পড়ে থাকে। কিছু সময়ের জন্য রাস্তায় যানচলাচল বন্ধ হয়ে যায়। পুলিশ এসে মৃতদেহগুলো উদ্ধারের পর এলাকাবাসী পানি দিয়ে রাস্তা পরিষ্কার করে দেয়। সংবাদ পেয়ে পরিবারের সদস্যরা ঘটনাস্থলে ছুটে আসে। তাদের আর্তনাদে এলাকার পরিবেশ ভারী হয়ে ওঠে। দুর্ঘটনার জন্য এলাকাবাসী বোগদাদ বাসকেই দায়ী করেছেন। তারা জানান, ঘোষের বাড়ির ভয়ানক মোড়ের এক পাশ কিছুটা ভাঙ্গা থাকায় বোগদাদ বাস চালক রং সাইডে চাপ দেয়ার ফলে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এছাড়া মোড়ের কারণে সামনে দেখতে না পাওয়ায় মোটরসাইকেলটির উপর চালক বাস উঠিয়ে দেয়।
এলাকাবাসী ও যাত্রীসাধারণ বোগদাদ বাস চালকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন। কচুয়া থানার ওসি জানান, আইনি প্রক্রিয়া শেষে পরিবারের নিকট মৃতদেহ দুটি হস্তান্তর করা হবে। ঘাতক বাস চালকের বিরুদ্ধে যথাযথ আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে। বরুড়া উপজেলার লক্ষ্মীপুর আবাবীল একাডেমিতে গিয়ে কথা হয় শিক্ষার্থীদের সাথে। তারা জানান, জাবের হোসেন পবিত্র কোরআন শরীফের ২২ পারা পর্যন্ত মুখস্থ করেছে। তাদের নূরানী শিক্ষক জাহিদ হোসেন নিজ বাড়িতে একটি কাজের জন্য ছাত্র জাবের হোসেনকে নিয়ে গিয়েছিলেন। মাদ্রাসার পরিচালক হাফেজ মাওলানা মহসিন জরুরি কাজে ঢাকাতে যাওয়ায় মাদ্রাসাটির দায়িত্ব পালন করছিলেন শিক্ষক জাহিদ হোসেন।

 

সর্বাধিক পঠিত